শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম

আজকে আপনারা জানতে পারবেন শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম। অনেকে আপনারা জানেন না শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম কি? আর তাই উক্ত পোষ্টের মাধ্যমে আজকে আপনারা শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার সঠিক নিয়ম জানতে পারবেন। তাছাড়া আরো জানতে পারবেন শিশুদের যদি সব কোন সময় ঠান্ডা বা কাশি হয় তখন তা থেকে শিশুকে রক্ষা করবেন কিভাবে। আর তাছাড়া আজকে আপনারা কেন আরো জানানো হবে শিশুদের ব্রডিল সিরাপ এর বেশ কিছু উপকারিতা। 
শিশুদের-ব্রডিল-সিরাপ-খাওয়ার-নিয়ম
যা আপনাকে আপনার শিশু সম্পর্কে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিতে সক্ষম হবে। আর এই শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম এর উপকারিতা সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য দেওয়া হয়েছে। যা আজকে আপনি আমাদের এই উক্ত আর্টিকেল দ্বারা আপনি পেয়ে যাবেন। আর তাই সবকিছু জানতে আপনি আমাদের রক্তে পোস্ট মনোযোগ সহকারে পড়েন আশা করি এই প্রশ্নের মাধ্যমে আপনি সন্তানের সকল তথ্য জানতে পারবেন। আপনি পড়তে পারেন আপনার সন্তান সম্পর্কে আর কোনো পোস্ট আপনাকে পড়তে হবে না করতে হবে না।

ভূমিকা

প্রিয় পাঠক বন্ধগণ, আশা করি আজকে আর্টিকেল আজকে আপনি খুব মনযোগ সহকারে পড়বেন। কারণে এই পোস্টের মাধ্যমে আপনি আপনার সন্তান সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। প্রতিটি সন্তানের বাবা-মায়ের চায় যে সন্তান যেন সুস্থ সবল থাকে। সন্তান যাতে সব সময় হাসিখুশি থাকে। আর তাই আপনারা অনেকেই অনেক সময় নানা পোস্ট সার্ট করেন এবং খোঁজেন কিন্তু সঠিক তথ্য জানতে পারেন না। 

আর তাই আপনাদের সুবিধার জন্য আমরা এক পোস্টে সকল তথ্য তুলে ধরেছি। আশা করি সেগুলো আপনি যদি দয়া করে পড়বেন। পড়ার ফলে আপনাকে আর কোন তথ্য খুঁজতে হবে না বা কারো কাছে জানতে হবে না। নিজে নিজে আপনার সন্তানের যত্ন নিতে পারবেন। তাছাড়া শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম আমাদের দেশ জানার দরকার। কারণে এই সিরাপ সম্পর্কে আপনি যদি না যানেন তাহলে আপনার শিশুর ক্ষতি হতে পারে। 

আর তাই সবকিছু জেনে তারপরে আপনার শিশুকে আপনি ব্রডিল সিরাপ খাওয়ান। আপনি যদি কোন কিছু না জেনে আপনার সন্তানকে কিছু খান তাহলে আপনার আপত্তিতে দেখা যাবে যে আপনার সন্তানের জায়গায় ক্ষতি বেশি হচ্ছে। আশা করছি আপনি উক্ত পোস্টে মনোযোগ সহকারে পড়বেন। কারণ শিশুর যত্ন নিতে হবে। সম্পন্ন যদি আপনি পড়তে পারেন আশা করে তারপর আপনার আর কোন সমস্যা থাকবে না।

ব্রডিল সিরাপ এর কাজ কি

ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার ফলে সাধারণত দেখা যায় যে শ্বাসকষ্ট, হৃদয়রোগ, সর্দি, কাশি, শিশুদের ঠান্ডা ইত্যাদি। একটু সমস্যার কারণে আপনি ডাক্তারের কাছে পরামর্শ নেন। তবে ঠান্ডার জন্য সবসময় আপনাকে ডাক্তারের কাছে যেতে হবে না। কারণ ঘরোয়া ভাবে বা অনেক পদ্ধতি আছে যেভাবে আপনি আপনার শিশুকে সব সময়ই সুস্থ রাখতে পারবেন। কোন সময় দেখা যাবে না যে আপনার শিশু কোন সময় অসুস্থ হচ্ছে। 

আর তা আপনি আপনার শিশুকে সবসময় যদি ডাক্তারের কাছে পরামর্শ নিতে চান তাহলে আপনি দিনটা পারেন তবে নিজের কিছু করতে চাইলেও করতে পারবেন। দেখা যায় যে অনেক জায়গায় ভুল পরামর্শ দেওয়া থাকে। সে ক্ষেত্রে যদি আপনার সন্তানের যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে আপনি শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম এর জন্য আপনি সব সময় ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন। অনেক সময় দেখা যায় যে বেশ কিছু সময় শিশুদের কাশি হচ্ছে গলা জ্বালা পোড়া করছে বুক জ্বালা পোড়া করছে।
কারণ ব্রডিল সিরাপ সাধারণত ঠান্ডা একটি সিরাপ হিসেবে বিবেচনা করা যায়। বাচ্চাদের যখন খুব বেশি ঠান্ডা হয় তখন ডাক্তার গণ এটি খাওয়ানোর পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এ কারণে বাচ্চাদের যখন ঠান্ডা বা এজমা রোগ হয়ে থাকে অথবা বাচ্চাদের কাশি হয়ে থাকে তখন এটি ডাক্তার গণ খেতে দেয়। কারণ এটা খাওয়ার ফলে বাচ্চাদের ঠান্ডা, কাশি, সর্দি, বুক জ্বালাপোড়া, বাচ্চাদের শ্বাসকষ্ঠ, বাচ্চাদের হৃদয় রোগ নামক অসুখ থেকে মুক্ত করা সম্ভব।

যখন দেখা যায় যে বড়দের শ্বাসকষ্ট হচ্ছে তখন নাক দিয়ে পানি পড়ে যায়। দেখা যায় যে বিভিন্ন ধরনের তাদের শরীরে বিভিন্ন জায়গায় জীবাণু ছড়াতে শুরু করেছে। ঠিক তখনই আপনি যদি বাচ্চাদের সেই ব্রডিল সিরাপ বড়দের খাওয়ায় তাহলে বড়রাও সেসব অসুস্থ থেকে মুক্তি পেতে পারে। তবে সেই ক্ষেত্রে আপনাকে সব সময় ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে। এবং আপনাকে সর্বদা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ব্রডের সিরাপ খাওয়াতে হবে।

শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম

ব্রডিল সিরাপটি আসলেই এটি একটি ঠান্ডার সিরাপ। শিশুদের ঠান্ডা জন্য এটি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আর তাই বেশ এটির প্রভাব দেখা যায়। যেহেতু এটা শিশুদের একটা প্রোডাক্ট চায় শিশুদের জন্য বাচ্চার বাবা মা এবং এটি তাদের সহযোগিতার জন্য অনেকেই এটি কিনে থাকে। আর তাই অনেক ডাক্তার নেটের পরামর্শ দিয়ে থাকেন। দেখা যায় বাচ্চাদেরকে যদি ডাক্তারের কাছে একবার নিয়ে যাওয়া হয় তাহলে ডাক্তার আগে দেয়। 

এটি দেওয়ার ফল বাচ্চাদের অনেক উপকারিতা হয়। কারণ এই একটি ওষুধ ছাদ থেকে আট ধরনের ওষুধ কে বাচ্চাদের ভক্ত করতে সক্ষম। এছাড়াও বাচ্চাদের যখন আজমা রোগ হয় তখন তা দূর করতে ব্রডিল সিরাপ বেশ কার্যকরী। যাইহোক আপনি আপনার শিশুকে যদি অসুস্থ রাখতে চান তাহলে মডেল সিরাপ আপনার জন্য বেশ কার্যকরি। ডাক্তারের পরামর্শ নেন তাহলে সে ক্ষেত্রে অনেক ভালো হবে।
কারণ এটি একটি শিশু বাচ্চার জীবন মরনের উপর নির্ভর করে থাকে। তাই আপনাদের সন্তানের যদি কোন সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে সর্বপ্রথম আপনি ডাক্তারের পরামর্শ নিন। এতে আপনার ভালো ফলাফল হবে। আমরা সব সময় সাধারণত উদ্দেশ্য করে থাকি যে আপনার শিশুকে যেন ভালো ফলাফল এনে দিতে পারি। তার কারণ আমরা বিভিন্ন রকম পোস্ট করে থাকি। আর তাই আমরা অনেক সময় অনেক ধরনের আর্টিকেল লেগে থাকি। 

তার মধ্যে একটি হলো এটি সম্পূর্ণ আলোচনা করা হয়েছে যা শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে। একটি ব্লক পোস্ট লেখা হয়েছে। যেতে বর্তমানে আপনি পড়তেছেন। আপনি যখনই দেখবেন বাচ্চারা অসুস্থ তাই ভুগছে ঠিক তখনই আপনি ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন। বাচ্চাদের সমস্যা বা বাচ্চাদের বিভিন্ন ধরনের অসুস্থতা পরিবারের কাছে একটি দুঃখের সংবাদ। যা পৃথিবীর কোন বাবা মায়ের শুনতে চায় না। কেউ চায় না তার সন্তান কোন সময় অসুস্থ হয়ে থাকুক। তাই পৃথিবীর কোন বাবা মা চাই না যে তার সন্তান যে সেই কোন সময় অপেক্ষায় থাকুক।
  • বাচ্চার বয়স যদি ১ থেকে ৫ বছর হয়। তাহলে সেই বাচ্চার ক্ষেত্রে ২.৫ অথবা ৫ মিলি পর্যন্ত দিনে ঔষধ খাওয়াতে হবে। তবে তা দিনে দুই বার করে খাওয়াতে হবে।
  • বাচ্চার বয়স যদি ৬ থেকে ১১ বছর হয়। তাহলে সেই বাচ্চার ক্ষেত্রে ৫ মিলি পর্যন্ত দিনে ওষুধ খাওয়াতে হবে। তবে এই ওষুধ প্রত্যেকদিন দিনে তিনবার করে খাওয়াতে হবে।

বাচ্চাদের ব্রডিল সিরাপ

আমাদের মধ্যে যারা বাবা মা আছে তারা সব সময় বাচ্চা শরীরের দিকে খেয়াল রাখে। যারা খানতে চায় না তাদের রাখতে হয়। কারণ সব বাবা মা তাই তার বাচ্চা যেন সুস্থ থাকে। এর কারনে তারা সবসময় বাচ্চাদের সুস্থতার জন্য সব সময় তারা ডাক্তারের পরামর্শ নিতে থাকে। এক্ষেত্রে ডাক্তার পরামর্শ নেওয়া খুব জরুরী। কারণ এর ফলে শিশুদের সব সময় খেয়াল রাখতে হবে।

কোন সময় দেখা যায় যে আমরা অনেক ডাক্তারের কাছে যারা আমাদের ভুল পরামর্শ দেয় কারণ তাদের কোম্পানির ঔষধি বিক্রয় করার জন্য। তবে তাদের থেকে দূরে থাকবেন। কারণ ওষুধ বাচ্চাদের জন্য ভালো হবে না। যদি ভালো করতে চান তাহলে আপনাকে সঠিক ওষুধ সেবন করাতে হবে। প্রতিটি বাবা-মা চায় যাদের সন্তান সুস্থ থাকে স্বাভাবিক থাকে। আর তাই তারা বাচ্চার জন্য বিভিন্ন অর্থ খরচ করে থাকে। 
তবে খেয়াল রাখতে হবে সেটা যেন আসল কাজে ব্যবহৃত হয়। আর তাই আপনাকে সর্বপ্রথম খেয়াল রাখতে হবে যাতে সর্বদা আপনি আপনার বাচ্চাকে সঠিক ভাবে সঠিক নিয়ম অনুযায়ী সঠিক ওষুধ টি দিতে পারেন।দেখা যায় তারা যদি খারাপ খারাপ ওষুধ বাচ্চার জন্য দিয়ে থাকে। ভুল কোন ঔষধ বাচ্চার জন্য দিয়ে থাকে তাহলে আপনার বাচ্চার মৃত্যুর বা সেরকম কোন বড় ধরনের অসুস্থতায় পরতে পারে। 

আপনার বাচ্চা যাতে সব সময় জন্য আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে। কারণ ভুল ওষুধ সেবনের ফলে হতে পারে তার শরীরের মারাত্মক ধরনের ক্ষয়ক্ষতি। বা মৃত্যু নামক কোন দুর্ঘটনা। বাচ্চাকে যদি ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান তাহলে বাচ্চাদের ডাক্তার কোন বেশিরভাগ ক্ষেত্রে যে ৬৪ দিয়ে থাকে ওষুধের নাম হলো ব্রডিল সিরাপ। যা কমন একটা ঔষধ। 

অতিত এর বাবার অনেক হয়েছে ভবিষ্যতে হবে এবং বর্তমান তো বাপও করা হচ্ছে। আর তাই আপনি যদি আপনার বাচ্চাকে ব্রডিল সিরাপ সর্বপ্রথম ডাক্তার পরামর্শ নেন। নাচের পরামর্শ ছাড়া কোন ঔষধ থেকে দূরে থাকবেন। কারণ এর ফলে হতে পারে আপনার আপনার বাচ্চার বড় ধরনের কোন আসংখ্যা। বা বড় ধরনের কোন ক্ষয় ক্ষতি।

শিশুদের ব্রডিল আসলে কিসের সিরাপ

অনেকের মনে প্রশ্ন আসে যে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় যে ডাক্তারের কাছে যখন আমরা পরামর্শ নিতে চাই তখন ডাক্তার ব্রডিল সিরাপ দেয় আমাদের। তখন আমরা চিন্তা করি যে বড়টা রাজ্যের সকল ক্ষেত্রে দিচ্ছে তাহলে ব্রডিল আসলে কিসের ঔষধ। সে সম্পর্কে আপনার প্রশ্ন থাকতে পারে এটাই স্বাভাবিক। বিভিন্ন ডাক্তার এবং গবেষণাগণ বলেন ব্রডিল আসলেই বাচ্চাদের সর্দি কাশি দূর করতে পারে। 

তবে মূলত এটি হলো বাচ্চাদের ঠান্ডার ঔষধ। ধামরাইদানিক ব্যবহার করেছি এবং বর্তমানেও করতেছি। অনেক সময় দেখা যায় বাচ্চাদের বিভিন্ন ধরনের বড় বড় সমস্যা হচ্ছে তখন ঠিক সময়। আপনার বাচ্চাকে অন্য কোন ঔষধ দিলেও কিন্তু তার সাথে ব্রডিল সিরাপ দেবেই। এটি খুবই কমন একটা ঔষধ। যা সব ডাক্তাররা ব্যবহার করে থাকে। সব সময় বাজারের সচরাচর দেখতে পাওয়া যায়।

শিশুদের ব্রডিল সিরাপ এর উপকারিতা

ব্রডিল সাধারণত এটি ঠান্ডার একটি সিরাপ। ডাক্তাররা বেশি ব্যবহার করে থাকে বাচ্চাদের ক্ষেত্রে। আটা বাচ্চাদের শরীরের অসুস্থতা যদি লক্ষণ দেখা দেয় তাহলে সেই সময় বাচ্চাদের জন্য অনেকটা কত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়ে। সেই সময় বাচ্চারা অনেক নাজুক হয়ে থাকে। আর সে সময় যদি কাশিও হয়ে থাকে বা শ্বাসকষ্ট হয় তাহলে ব্রাডিল সিরাপ বেশি উপকারী। যখন দেখবেন বাচ্চারা বেশিক্ষণ বা বেশিদিন ধরে অসুস্থ সেটা আপনি লক্ষ্য করতে পারছেন। 

ঠিক তখনই আপনি ডাক্তার পরামর্শ নেন। তখন আপনি ডাক্তারের কাছে যাবেন তখন দেখবেন অধিকাংশ সময় ডাক্তার শিশুদের জন্য দিচ্ছে। তাছাড়া বাঁচার যখন ঠান্ডা লাগে বা সর্দি কাশি হয় ঠিক তখন বাচ্চারা বেশ কষ্ট পায়। আর তাই বাচ্চাকে সুস্থ রাখতে ব্রডিল সিরাপ বেশ উপকারি হিসেবে ব্যবহৃত হয়। সময়টা চাও তো অসুস্থতার সেহেতু বাঁচ্চাদের অসুস্থ হবে এটাই স্বাভাবিক। তবে আপনি দেখবেন তো সময় বাচ্চাদের বুক জ্বালাপালা করছে। 
সময় তো দেখা যায় বাচ্চার কাজের জন্য ভুগছে। আবার কখনো কখনো দেখবেন বাচ্চারা বলতেছে তাদের বুক জ্বালাপালা করতেছে অথবা বলতে পারতেছে না। আর তাই বাচ্চাদের যখন ছটফট করে তখন আপনি ডাক্তারের পরামর্শ নেন। কিছু কিছু সময় দেখা যায় যে কাইসের পরিমাণ খুব বেশি হয়।

যদি আপনার সন্তানের সর্দির কাছে বেশি হয় বা অতিরিক্ত হয়ে যায় বুক বেশি জ্বালাপোড়া করতে তাহলে বুক ফেটে যেতে পারে। সেরকম অনুভব করলে। তখন আপনি আপনার পাশের গতি ডাক্তারের কাছে আপনার বাচ্চাকে দেখান তখনো আপনাকে সর্ব ডাক্তার আমার সাথে দেবে যে আপনি ব্রাডিল সিরাপ খাওয়ান।
  1. ব্রডিল সিরাপ দিনে দুই বার করে খেতে হবে। যখনই আপনি এটি খাবেন তখনই হাফ চামচ করে খেতে হবে আপনাকে। তবে এটি ধর্ম থেকে শুরু করে ৫ বছর বয়সে বাচ্চারা গ্রহণ করতে পারবে এই নিয়ম অনুযায়ী।
  2. যাদের বয়স ৫ থেকে ১১ বছর বয়সি বাচ্চার ক্ষেত্রে এক চামচ করে দিতে হবে দিনে ৩ বার।

লেখকের মন্তব্য

প্রিয় পাঠক বন্ধুগণ, আশা করি এতক্ষণ ধরে আপনি জানলেন শিশুদের ব্রডিল সিরাপ খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে। এবং তাছাড়া আপনাদের কাছে আলোচনা করেছিলাম আরও বিভিন্ন তথ্য নিয়ে। সিকদার সিরাপ নিয়ে বেস্ট কিছু তথ্য আপনার সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। এতক্ষণ ধরে আলোচনার আপনার দেখার জন্য শোনার জন্য আপনাকে জানায় অসংখ্য ধন্যবাদ।

আজকের এই উক্ত পোষ্ট যদি আপনি মনোযোগ সহকারে পড়েন তাহলে আপনি জানতে পারবেন শিশুদের যত্ন কিভাবে নিতে হয়। তাছাড়া শিশুকে কিভাবে ব্রডিল সিরাপ খাওয়াবেন। আর তাই উক্ত পোস্ট যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে একটি কমেন্ট করবেন। আরো কোন তথ্য যদি আপনার জানার দরকার থাকে তাহলে আপনি আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন আমরা আপনাকে সর্বদা সাহায্য করার চেষ্টা করব।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

শামিম বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url